বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৩:২৯ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বরিশালে মালিককে অচেতন করে স্বর্ণ লুট

বরিশালে মালিককে অচেতন করে স্বর্ণ লুট

রিপোর্ট আজকের বরিশাল :
বরিশাল নগরীতে ফ্ল্যাট মালিককে চেতনানাশক ওষুধ খাইয়ে স্বর্ণালঙ্কার লুটে নেয় এক ভাড়াটিয়া নারী। পরে সেই স্বর্ণলঙ্কার শহরের সদর রোডের একটি ব্যবসাপ্রতিষ্ঠানে বিক্রি করে টাকাটি রাখেন অপর একটি দোকানে। এই ঘটনায় রোবববার রাতে তনু বালা (৩৮) নামের নারীকে গ্রেপ্তারের পরবর্তীতে তার স্বীকারোক্তি নিয়ে সোমবার দুপুরে টাকাসহ স্বর্ণলঙ্কার উদ্ধার করে পুলিশ। গ্রেপ্তার তনু বালা মাদারীপুর গ্রামের রাজৈর উপজেলার বাসিন্দা। তিনি কয়েক মাস যাবত বরিশাল শহরের বিএম কলেজ এলাকার লিচুশাহ সড়কের ‘সাথী মঞ্জিল’র পাঁচ তলার একটি ফ্ল্যাট ভাড়া নিয়ে বসবাস করে আসছিলেন। বরিশাল মেট্রোপলিটন কোতয়ালি মডেল থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি/তদন্ত) মো. আসাদুজ্জামান বরিশালটাইমসকে জানান, রোববার দুপুরে তনু বালা ভবন মালিক সাথী বেগমের তিন তলার ফ্ল্যাটে প্রবেশ করে এক হাজার টাকা ধার চান। টাকাটি দেওয়ার পরে তিনি নিজের হাতে বাসা মালিক ও তার মেয়েকে নিজের হাতে এক কাপ কফি তৈরি করে খাওয়ানোর ইচ্ছা পোষণ করেন। দুপুরে কফি খেতে সাথী বেগম অনিচ্ছা প্রকাশ করলেও তনু বালা তাকেসহ মেয়েকে কফি তৈরি করে এনে দেন। এর আগে তিনি কফিতে ৫টি চেতনানাশক ওষুধ মিশিয়ে দেন। সেই কফি খেয়ে মা মেয়ে অচেতন হয়ে পড়লে তিনি তাদের শরীরে জড়ানো স্বর্ণলঙ্কার খুলে নিয়ে আসেন। পরে সেগুলো বরিশাল সদর রোডের ‘শাহাদাত অ্যান্ড সন্স’ নামক একটি প্রতিষ্ঠানে বিক্রি করে সেই টাকা পার্শ্ববর্তী ‘মোহনা জেনারেল স্টোর্সে’ রাখেন। থানা পুলিশ সূত্র জানায়- রাতে ভবন মালিক ও মেয়ের জ্ঞান ফিরতে বিষয়টি তারা সংশ্লিষ্ট কোতয়ালি থানা পুলিশকে অভিযোগ আকারে অবহিত করেন। রাতেই পুলিশের উপ-পরিদর্শক (এসআই) ফিরোজ আল মামুন অভিযান চালিয়ে তনু বালাকে গ্রেপ্তার করেন। পরে তাকে থানা হেফাজতে রেখে জিজ্ঞাসাবাদ করা হলে পুরো বিষয়টি স্বীকার করে স্বর্ণ বিক্রি ও টাকা দোকানে রাখার তথ্য দেন। সোমবার দুপুরের দিকে তাকে নিয়ে কোতয়ালি থানা পুলিশের ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি/তদন্ত) মো. আসাদুজ্জামানের নেতৃত্বে একটি টিম একটি প্রতিষ্ঠান থেকে স্বর্ণ বিক্রির ৫০ হাজার টাকা ও অপর প্রতিষ্ঠান থেকে স্বর্ণ উদ্ধার করেন। পরবর্তীতে এই ঘটনায় ভবন মালিক সাথী আক্তার একটি মামলা করেন। সেই মামলায় তনু বালাকে গ্রেপ্তার দেখিয়ে সন্ধ্যার দিকে আদালতে তাকে কারাগারে প্রেরণ করা হয়। এদিকে কাগজপত্র ছাড়া স্বর্ণ ক্রয়ের অভিযোগে সোমবার রাতে বরিশাল সদর রোডের ‘শাহাদাত অ্যান্ড সন্স’র মালিকের ছোট ভাই ইদ্রিসকে গ্রেপ্তার করা হয়েছে বলে নিশ্চিত করেছেন সেকেন্ড অফিসার উপ-পরিদর্শক (এসআই) মো. মোস্তাফিজুর রহমান।’

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2012
Design By MrHostBD