বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২, ০৪:১২ পূর্বাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
বরিশালে বাইপাস হয়ে ফোরলেন নির্মানের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান

বরিশালে বাইপাস হয়ে ফোরলেন নির্মানের দাবীতে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি প্রদান

রিপোর্ট আজকের বরিশাল:
বরিশাল নগরীর সিএন্ডবি রোডের দুই পাশের বাসিন্দাদের সম্পদের ক্ষতি না করে বাইপাস (গড়িয়ারপাড়-কুদঘাটা-কালিজিরা) হয়ে ভাঙ্গা-বরিশাল-কুয়াকাটা ফোরলেন নির্মানের দাবী উঠেছে। এই দাবীতে বরিশাল জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী বরাবর স্মারকলিপি দিয়েছেন বরিশাল শহর বাইপাস মহাসড়ক উন্নয়ন বাস্তবায়ন কমিটি। গতকাল বৃহস্পতিবার সকালে স্মারকলিপি গ্রহনকালে জেলা প্রশাসক স্থানীয় জনগনের দাবীর বিষয়টি সরকারের উচ্চ পর্যায়ে উপস্থাপনের আশ^াস দেন। স্মারকলিপি প্রদানকালে বরিশাল শহর বাইপাস মহাসড়ক উন্নয়ন বাস্তবায়ন কমিটির আহ্বায়ক প্রকৌশলী মো. নুরুল হক, যুগ্ম আহ্বায়ক মুকিবুর রহমান মুকিব, মো. আবু জাফর, মো. মজিবর রহমান সহ অন্যান্যরা উপস্থিত ছিলেন। স্মারকলিপিতে তারা উল্লেখ করেন, ভাঙ্গা-কুয়াকাটা ফোরলেনের কারনে নগরীর প্রবেশদ্বার গড়িয়ারপাড় থেকে দপদপিয়া পর্যন্ত সিএন্ডবি রোডের দুই পাশের ২শতাধিক ৫ তলা সহ ৫ শতাধিক ভবন, হাজারো ব্যবসা প্রতিষ্ঠান, ২০টির অধিক শিক্ষা প্রতিষ্ঠান, ৪টি মসজিদ, ২টি মন্দির, সরকারী শিশু সদন, সড়ক বিভাগ কার্যালয়, বিএডিসি, টিটিসি, মৎস্য ভবন সহ একাধিক সরকারী প্রতিষ্ঠান ক্ষতিগ্রস্থ হবে। বরিশালের মানুষ দির্ঘদিন ধরে দাবী জানিয়ে আসছে, ঢাকা-বরিশাল-কুয়াকাটা মহাসড়কের নগরী অংশের ১১ কিলোমিটার সিএন্ডবি মহাসড়কে (গড়িয়ারপাড়-দপদপিয়া) ভারী যানবাহনের প্রচুর চাপ। এছাড়া হাজার হাজার হালকা যানবাহনের কারনে সিএন্ডবি রোডের দুই পাশের হাজার হাজার মানুষ রাস্তা পারপার হতে পারে না। দুই পাশের হাজার হাজার শিক্ষার্থী প্রতিনিয়ত রাস্তা পারাপারে ভোগান্তির শিকার হন। ঝূঁকি নিয়ে রাস্তা পার হতে গিয়ে প্রায়ই দুর্ঘটনায় পড়ে হতাহত হন বরিশালের মানুষ। এ অবস্থায় প্রস্তাবিত ফোরলেনটি নগরীর বর্তমান সিএন্ডবি রোড না হয়ে মূল শহরের এক পাশ দিয়ে গড়িয়ারপাড়-কুদঘাটা-কালীজিরা হয়ে দপদপিয়া পর্যন্ত বাইপাস হয়ে নির্মানের দাবী জানানো হয় স্মারকলিপিতে। বাইপাস হয়ে ফোরলেন নির্মিত হলে সড়ক বিভাগের কোটি কোটি টাকা সাশ্রয় হবে বলেও স্মারকলিপিতে উল্লেখ করা হয়েছে। স্মারকলিপি হাতে পাওয়ার পর জেলা প্রশাসক এসএম অজিয়র রহমান বাইপাস উন্নয়ন কমিটির নেতৃবৃন্দের উপস্থিতিতে মুঠোফোনে সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীর সাথে কথা বলেন। জেলা প্রশাসক এ বিষয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়ার আগে তিনি (জেলা প্রশাসক) স্থানীয় জনগনের মতামতকে গুরুত্ব দেওয়ার অনুরোধ করেন সড়ক বিভাগের নির্বাহী প্রকৌশলীকে। একই সাথ এ বিষয়টি সরকারের উচ্চ পর্যায়ে উপস্থাপনের প্রতিশ্রুতি দেন বাইপাস উন্নয়ন কমিটির নেতাদের। সড়ক বিভাগ সূত্র জানায়, ভাঙ্গা থেকে-কুয়াকাটা পর্যন্ত ২৩৬.৭৪ কিলোমিটার ফোরলেন নির্মানে বর্তমান সিএন্ডবি রোডের (মহাসড়ক) দুই পাশে ২০ ফুট করে মোট ৩০২.৭০ একর জমি অধিগ্রহন করবে সরকার। গত জুন মাসে জমি অধিগ্রহনের প্রশাসনিক অনুমোদন হয়ে গেছে। জমি অধিগ্রহনে ১ হাজার ৮শ’ ৬৭ কোটি ৮৫ লাখ ৯০ হাজার টাকার প্রাক্কলন তৈরী হয়েছে। প্রথম দফায় জমি অধিগ্রহনের জন্য ৪৭০ কোটি টাকা বরাদ্দ হয়েছে। এখন সড়ক বিভাগ থেকে সংশ্লিস্ট জেলা প্রশাসক কার্যালয়ে জমি অধিগ্রহনের প্রস্তাব পাঠানো প্রক্রিয়াধীন রয়েছে। এরপর স্ব-স্ব জেলা প্রশাসক কার্যালয় ওই জেলার অন্তর্ভূক্ত ফোরলেনের জন্য প্রয়োজনীয় জমি অধিগ্রহন করে সড়ক বিভাগকে বুঝিয়ে দেবে বলে সড়ক বিভাগের এক কর্মকর্তা নাম না প্রকাশের শর্তে জানিয়েছেন।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2012
Design By MrHostBD