মঙ্গলবার, ০৬ ডিসেম্বর ২০২২, ০৫:৪৩ পূর্বাহ্ন

পর্যটক শূন্য কুয়াকাটার সমুদ্র সৈকত

পর্যটক শূন্য কুয়াকাটার সমুদ্র সৈকত

কুয়াকাটা প্রতিনিধিঃ
যেখানে প্রতিদিন গোটা সৈকত জুড়ে পর্যটকদের ভীড়ে কানায় কানায় মূখরীত ছিলে। যে চিত্র বর্তমানে দেখা যাচ্ছে উল্টো দৃশ্যে খা খা করছে সাগর কন্যা কুয়াকাটার সমুদ্র সৈকত। হোটেল মোটেল,ওয়াটার বাস,ট্যুরিস্টবোট ও মার্কেট গুলো বন্ধ রাখার গত ৪ দিন হলো নির্দেশনা জারি করেছেন পটুয়াখালী জেলা প্রশাসন। পর্যটন মুখি ব্যবসায়ীরা ব্যবসার ক্ষতি চিন্তা বাদ রেখে এখন করোনা থেকে রাক্ষা পেতে আল্লাহ কাছে পানা ”াচ্ছেন। প্রাণঘাতী করোনা ভাইরাস এখন প্রতিটি মানুষের মুখে মুখে আলোচনা প্রাধান্য পেয়েছে। চিনের উহান শহরে প্রথম শনাক্ত হলেও এখন করোনা ভাইরাসের থাবা এশিয়ার বিভিন্ন অংশ এবং এর বাইরেও দ্রুত ছড়িয়ে পড়ছে এই ভাইরাস। বাংলাদেশের করোনার থাবায় পুরো থমকে পড়ছে মানুষের স্বাভাবিক জীবন যাত্রা। খুড়িয়ে খুড়িয়ে বানিজ্য চললেও শান্তনা থাক তো র্বতমানে একেবারেই বন্ধ । মুখ থুবড়ে পড়ে আছে পর্যটনকেন্দ্র। উৎকন্ঠা আর উদ্বেগের মধ্যে দিয়ে পার করছে মানুষ প্রতিদিন। বাংলাদেশের দ্বিতীয় সমুদ্র সৈকত সাগরকন্যা কুয়াকাটা এখন পর্যটকশূন্য। বুকিং বাতিল করছে পর্যটকরা । হতাশ হয়ে পড়ছে হোটেল মোটেল মালিকরা। অনির্দিষ্টকালের জন্য হোটেল মোটেল বন্ধ রাখার নির্দেশনা জারি করছে প্রশাসনের পক্ষ থেকে। উপজেলা প্রশাসনের পক্ষ থেকে নেয়া হয়েছে নানা প্রস্তুতি। পর্যটকদের নিরাপদে যার যার গন্তব্য চলে যাওয়ার ঘোষনা দিয়ে যাচ্ছে কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ। দিনরাত মাইকে সতর্কতা ঘোষনা করছে কুয়াকাটা ট্যুরিস্ট পুলিশ । হোটেল মোটেল গেস্ট হাউজ ও রেস্টুরেন্ট ও পর্যটননির্ভর ব্যবসায়ীরা অলস দিন পার করছে। পর্যটন ব্যবসায়ী মাহিম ফ্যাশনের মালিক মোঃ আনোয়ার বলেন, আগে এক দিনে যা বিক্রি হইত এখন তা এক সপ্তাহেও বিক্রি হয়না। খাঁন প্যালেস আবাসিক হোটেলের ব্যবস্থাপক মোঃ রাসেল খাঁন বলেন, অগ্রিম বুকিং বাতিল হয়ে গেছে । নতুন করে কোন পর্যটক কুয়াকাটা আর আগমন করছেনা। কুয়াকাটা ট্যুরিজম ম্যানেজম্যান্ট এ্যাসোসিয়েশন কুটুম‘র সভাপতি নাসির উদ্দিন বিপ্লব দৈনিক মানবজমিনকে বলেন, আমরা অনেক ক্ষতির মুখে পড়ে গেলাম করোনা ভাইরাসের প্রভাবে। ফটোগ্রফার মোসÍাফিজ(২৪) বলেন, কুয়াকাটায় পর্যটক না থাকায় আমরা ছবি তুলতে পারছিনা ফলে আমরা কস্টে দিনতিপাত করছি। হোটেল মোটেল অ্যাসোসিয়েশন’র সাধারণ সম্পাদক মোঃ মোতালেব শরীফ বলেন, আমরা ক্ষতির মুখে পড়ে গেলাম কর্মকর্তা কর্মচারী অলস সময় পার করছে। ট্যুরিস্ট পুলিশ কুয়াকাটার সিনিয়র এ এসপি মোঃ জহিরুল ইসলাস বলেন, আমরা প্রতিটি মূহুর্তে পর্যটকদের শুরুতেই সর্তকতা করছি পাশাপাশি কুয়াকাটায় বেড়াতে আসা পর্যটকদের যার যার যায়গায় চলে যাওয়ার জন্য অনুরোধ করছি । হোটেল গুলো বন্ধ করে দিয়েছি ও দেখতেছি নতুন করে কোন ট্যুরিস্ট হোটেলে না রাখে।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2012
Design By MrHostBD