বুধবার, ২১ ফেব্রুয়ারী ২০২৪, ১১:৪৭ অপরাহ্ন

সংবাদ শিরোনাম :
নগরীর মথুরানাথ পাবলিক স্কুল এর ৫৭তম বার্ষিক ক্রীড়া প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত। বরিশালে বিভাগীয় বন কর্মকর্তার বিরুদ্ধে মানববন্ধন নগরীর আলেকান্দা কাজীপাড়া এলাকায় এক প্রবাসীর ক্রয় করা জমির গেট ভাংচুর করছে প্রতিপক্ষরা। বছরের প্রথমদিনে সরকারের দেওয়া বিনামূল্যের বই শিক্ষার্থীদের মাঝে বিতরন শান্তি প্রিয় যুবসমাজ স্বেচ্ছাসেবী সংগঠনের উদ্যোগে , অসহায় মানুষের মাঝে শীতবস্ত্র বিতরন। বাংলাদেশ মেরিন একাডেমি বরিশাল এর ২য় ব্যাচের ক্যাডেটদের শিক্ষা সমাপনী কুচকাওয়াজ অনুষ্ঠিত। আমি স্বতন্ত্র প্রার্থী আমার কোন দল নেই -সালাউদ্দিন রিপন বরিশাল বিভাগে নূরানী ৩য় শ্রেণীর সমাপনী পরীক্ষার ফল প্রকাশ আমি গরীবের বন্ধু সারাজীবনই গরীবের সেবা করতে চাই,বানীতে সালাউদ্দিন রিপন, কমিটির অধীনে নিয়োগপ্রাপ্ত ইন্ডেক্সধারি শিক্ষকদের বদলি নীতিমালায় অন্তর্ভুক্তির দাবি
বাউফলে আ’লীগ নেতার ছবি ভাইরাল

বাউফলে আ’লীগ নেতার ছবি ভাইরাল

বাউফলে আ’লীগ নেতার ছবি ভাইরাল
বাউফলে আ’লীগ নেতার ছবি ভাইরাল

পটুয়াখালী:

পটুয়াখালীর বাউফল উপজেলার কেশবপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান, একই ইউনিয়ন আওয়ামী লীগের সভাপতি ও কেশবপুর ডিগ্রি কলেজের অধ্যক্ষ সালেহ উদ্দিন পিকুর মদপানের ছবি সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে ভাইরাল হয়েছে। বৃহস্পতিবার রাতে (২৬ জানুয়ারি) সোহেল হাওলাদার নামের এক ব্যক্তির ফেসবুক অ্যাকাউন্ট থেকে আওয়ামী লীগ নেতা পিকুর মদপানের ছবিটি পোস্ট করা হয়। এরপর মুহূর্তেই ছবিটি একাধিক ব্যক্তি কপি করে তাদের ফেসবুক আইডি থেকে পোস্ট করেছেন। এরপরই ছবিটি ভাইরাল হয়ে যায়। ছবিতে লুঙ্গি পরিহিত খালি গায়ে চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকুর সামনে একটি কাঁচের গ্লাস ও একটি পানির বোতল রয়েছে। তার পাশে কোনো এক ব্যক্তির হাতে মোবাইল ফোন ও তার দুই হাতের মধ্যে একটি মদের বোতল দেখা যাচ্ছে। চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকুর সামনে গ্লাসে মদ রাখা হয়েছে। কোনো একটি যাত্রীবাহী দোতালা লঞ্চের কেবিনে এ মদের আসর বসেছিল। তখন তাদের মধ্যে যে কেউ ছবিটি তুলেছে। এ ছবিটি ফেসবুকে ছড়িয়ে পরায় আওয়ামী লীগ নেতা পিকুকে নিয়ে নানা সমালোচনা শুরু হয়েছে। কেউ কেউ লিখেছেন, তার (পিকু) দ্বারা এর চেয়েও খারাপ কিছু করা সম্ভব। আবার কেউ লিখেছেন, একজন ইউপি চেয়ারম্যান হিসাবে মদ্যপান করলে আপত্তি ছিলনা। কিন্তু তিনি তো একজন কলেজ অধ্যক্ষ! তার কাছ থেকে শিক্ষার্থীরা কি শিখবে? এর চেয়েও বাজে ভাষায় কমেন্ট করেছেন অনেকে। এ বিষয়ে চেয়ারম্যান সালেহ উদ্দিন পিকু বলেন, এটা আমার ছবি না। আমার বিরুদ্ধে ষড়যন্ত্রের অংশ হিসেবে এডিট করে ছবিটি ভাইরাল করা হয়েছে। যারা এ কাজটি করেছে তাদের বিরুদ্ধে আমি তথ্য প্রযুক্তি আইনে মামলা করার সিদ্ধান্ত নিয়েছি। তবে এ বিষয় উপজেলা আওয়ামী লীগের কোনো নেতা মন্তব্য করতে রাজি হননি।

নিউজটি আপনার বন্ধুদের সাথে শেয়ার করুন




© All rights reserved © 2012
Design By MrHostBD